পীযুষ বন্দোপাধ্যায়কে গ্রেফতার দাবি

দাড়ি, টুপি ও টাখনুর ওপর কাপড় পরা জঙ্গিবাদের লক্ষণ বলে কটূক্তি করায় স¤প্রীতি বাংলাদেশ-এর প্রধান পীযুষ বন্দোপাধ্যায়কে গ্রেফতার ও সংগঠনটি নিষিদ্ধের দাবিতে আগামী শুক্রবার বাদ জুমা রাজধানীর বায়তুল মোকাররম উত্তর গেইটে বিক্ষোভ মিছিলের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে ইসলামী ঐক্যজোট।

এছাড়াও সারা দেশের প্রতিটি মসজিদ থেকে বাদ জুমা বিক্ষোভ মিছিল করার আহবান জানানো হয় মুসল্লিদের প্রতি।

গতকাল মঙ্গলবার লালবাগস্থ কার্যালয় মিলনায়তনে ইসলামী ঐক্যজোট আয়োজিত ইফতার মাহফিলে এ কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। ইফতার মাহফিলে ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা আব্দুল লতিফ নেজামী বলেন, যারা বলে দাড়ি, টুপি ও টাখনুর ওপর কাপড় পরা জঙ্গিবাদের আলামত মূলত তারাই প্রকৃত জঙ্গি।

এই কুচক্রি মহল চায় না এদেশে ইসলামের সৌন্দর্য ফুটে উঠুক। ‘স¤প্রীতি বাংলাদেশ’ নামক সংগঠন ইহুদীদের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে মরিয়া হয়ে মাঠে নেমেছে। এই ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সকল মুুসলমানকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

ইফতার মাহফিলে আরো বক্তব্য রাখেন, ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব মুফতী ফয়জুল্লাহ, খেলাফত আন্দোলনের আমীর মাওলানা জাফরুল্লাহ খান, ইসলামী ঐক্যজোটের ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা আবুল হাসানাত আমিনী, সহকারী মহাসচিব মাওলানা আলতাফ হোসাইন, মাওলানা আব্দুর রশিদ মজুমদার, মাওলানা যোবায়ের আহমদ, মাওলানা জসিমউদ্দিন, মুফতী তৈয়্যব হোসাইন, মাওলানা ফজলুর রহমান, মাওলানা আবুল কাশেম, মাওলানা শেখ লোকমান হোসাইন, মাওলানা সাইফুল্লাহ হাবিবী প্রমুখ।

বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাওলানা ফজলুর রহমান, মহাসচিব মাওলানা আবদুল মাজেদ আতহারী, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর সভাপতি মাওলানা মুসা বিন ইজহার এক যুক্ত বিবৃতিতে বলেন, ৯৫ ভাগ মুসলমানের দেশে ইসলামের বিধান পালনকে জঙ্গি হওয়ার লক্ষণ বলে পীযুষরা চরম ধৃষ্টতা দেখিয়েছে।

পীযুষ বন্দোপাধ্যায়রা ভারতীয় এজেন্ডা বাস্তবায়নে মাঠে নেমেছে বলে অভিযোগ করে বিবৃতিতে আরো বলা হয়, পীযুষ ও তার সাঙ্গোপাঙ্গরা ভারতের উগ্র হিন্দুত্ববাদী আরএসএস-এর এজেন্ডা বাস্তবায়নের কর্মসূচি হিসেবে এসব কাজ করে যাচ্ছে। এদের (পীযুষ গং) উদ্দেশ্য কী। কেন তারা ‘স¤প্রীতি বাংলাদেশ’ নাম দিয়ে দেশের স¤প্রীতি নষ্ট করতে চাইছে।

বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের অভিভাবক পরিষদের চেয়ারম্যান শায়খুল হাদীস আল্লামা আশরাফ আলী বলেছেন, জাহেলী যুগ থেকে এপর্যন্ত সকল অন্যায় ও অবিচারকে চ্যালেঞ্জ করে ইসলাম সাম্য ও শান্তি প্রতিষ্ঠা করেছে।

ইসলামকে কুলষিত করার জন্য ইসলাম বিরোধী শক্তিগুলো বিভিন্ন ধরণের ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। মুসলমানদের এদেশে পীযুষ বন্দোপাধ্যায় সম্প্রীতি বাংলাদেশ নামক একটি সংগঠনের নামে অসম্প্রীতি ও বিশৃংখলা সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে।

যা এদেশের লক্ষ কোটি মুসলমান কখনোই বরদাস্ত করবে না। ইসলামের আবশ্যকীয় বিধান দাঁড়ি, টুপি আর টাখনোর উপর কাপড় পরিধান, ধর্ম চর্চা ও ধর্মীয় বিধি বিধান পালনকে জঙ্গিবাদের লক্ষণ হিসেবে প্রচার করে এদেশের মানুষের সম্প্রীতিতে আঘাত হানা পীযুষ বন্দোপাধ্যায় সহ সংগঠনটির সাথে জড়িত সকলকে অতিসত্ত¡র গ্রেফতার করতে হবে। গতকাল বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস আয়োজিত ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শায়খুল হাদীস আল্লামা আশরাফ আলী একথা বলেন।

সংগঠনের আমীর শায়খুল হাদীস মাওলানা ইসমাঈল নূরপুরীর সভাপতিত্বে ও মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক এর পরিচালনায় ইফতার মাহফিলে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, দৈনিক ইনকিলাব এর সহকারী সম্পাদক মাওলানা উবায়দুর রহমান খান নদভী, নায়েবে আমীর মাওলানা রেজাউল করীম জালালী, ইসলামী ঐক্য আন্দোলন এর আমীর ডক্টর মাওলানা ঈসা শাহেদী, মাওলানা সাঈদ নূর, দৈনিক নয়াদিগন্ত পত্রিকার সম্পাদক আলমগীর মহিউদ্দিন, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ এর সহ সভাপতি মাওলানা উবায়দুল্লাহ ফারুক,

বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন এর নায়েবে আমীর মাওলানা মজিবুর রহমান হামিদী, বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম এর মহাসচিব মাওলানা শেখ মজিবুর রহমান, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা জালালুদ্দীন আহমদ, মাওলানা আতাউল্লাহ আমীন, মাওলানা আজিজুর রহমান হেলাল, মাওলানা এনামুল হক মূসা, মাওলানা হারুনুর রশীদ ভূঁইয়া।