২ কোটি টাকা বেতনেও মিলছে না কর্মচারী

চাকরির বাজার বর্তমানে খুবই চড়া। সেইসঙ্গে কর্মক্ষেত্রে টিকে থাকার প্রতিযোগীতাও অনেক। দিন দিন বেকারের সংখ্যা বাড়লেও চাকরি যেখানে জোটে না সেখানে লোভনীয় অঙ্গের টাকার বেতন দেয়ার আশ্বাস দিয়েও কর্মচারি মিলছে না।

মাত্র ১৩ হাজার ৬০০ লোকের বসবাস শহরটিতে। রয়েছে ছোট একটি হাসপাতাল। হাসপাতালটিতে কর্মরত আছেন মাত্র ৬ জন ডাক্তার। এক বছরে ১২ সপ্তাহ ছুটি থাকবে এই চাকরিতে। কিন্তু তারপরও কাউকেই আকৃষ্ট করা সম্ভব হচ্ছে না হাসপাতালটিতে যোগ দিতে।

নিউজিল্যান্ডের মফস্বল শহরের একটি ছোট হাসপাতালে ডাক্তার নিয়োগে বার্ষিক ৪ লাখ নিউজিল্যান্ড ডলার যা বাংলাদেশের ২ কোটি টাকারও বেশি বেতনের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। অবিশ্বাস্য হলেও সত্য গত ২ বছরে একটিও চাকরির আবেদন জমা পড়েনি।

নর্থ আইল্যান্ডের ছোট্ট শহর টকোরোয়ায় অবস্থিত হাসপাতালটির মালিক ৬১ বছর বয়সী ড. অ্যালান কেনি। ড. কেনি জুনিয়র ডাক্তার নিয়োগে ৪টি মেডিকেল রিক্রুটমেন্ট ফার্মের শরণাপন্ন হয়েও কাউকে নিয়োগ দিতে পারেননি।

ড. কেনি এনডিটিভিকে বলেন, কাজ ছাড়া আমার ভালো লাগেনা এবং কাজ নিয়ে থাকতে চাই। ডাক্তারদের এখানে আনার জন্য আমাকে মারাত্মক বেগ পেতে হচ্ছে। অকল্যান্ডে মেডিকেলে পড়ুয়ারা অধিকাংশই ধনী পরিবারের সন্তান।

গতবছর একজন বিকল্প ডাক্তার না পাওয়ায় আমার হলিডে ভ্রমণ বাতিল করতে হয়েছিল। জানি না এ বছর কী হবে? তিনি আরো বলেন, হাসপাতালটি ক্রমেই বড় হচ্ছে এবং বর্তমানে প্রায় ৬ হাজার রোগীকে চিকিত্সা সেবা প্রদান করা হচ্ছে। তাই কিছু সংখ্যক ডাক্তার নিয়োগ জরুরি হয়ে পড়েছে।