Monday, May 27News That Matters

ধর্মীয় শিক্ষার অভাবে সব শ্রেণি-পেশার মানুষই পরকীয়ায় জড়াচ্ছে : মুফতী ফয়জুল করীম

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর নায়েবে আমীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম বলেছেন, ধর্মীয় শিক্ষা না থাকায় সরকারি-বেসরকারি উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা থেকে শুরু করে সব শ্রেণি-পেশার মানুষই পরকীয়ায় জড়াচ্ছেন। আর এসবই হচ্ছে অপশক্তির, অপসংস্কৃতি ও আকাশ সংষ্কৃতির প্রভাব আর ইসলামী শিক্ষার অভাবে । নৈতিকতা বিবর্জিত শিক্ষার কুফল সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ছে। ফলে বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক গড়ে তোলার হার অস্বাভাবিক সংখ্যায় বাড়ছে। পরকীয়ায় আসক্ত নর-নারীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়ার নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে পরিবার ও সমাজে। এর ফলে পুরো দেশে বিবাহ বিচ্ছেদের হার বেড়েছে। এতে দগ্ধ হচ্ছে পরিবার, ধুঁকছে সমাজ। এর সঙ্গে দাম্পত্য কলহ ও পারিবারিক সদস্যদের হত্যা করার মতো অপরাধও বৃদ্ধি পাচ্ছে। ইসলামী শিক্ষার অভাবে মানুষ অপরাধ প্রবণ হয়ে ধ্বংসাত্মক কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়ে। এজন্য শিক্ষার সকলস্তরে ইসলামী ও নৈতিক শিক্ষা বাধ্যতামূলক করা জরুরী।

রবিবার (০৩ মার্চ) রাজধানীর জুরাইনস্থ জামিয়া ফজলুল ঊলুম মাদরাসার খতবে বোখারী অনুষ্ঠানে বোখারী শরীফের দরস প্রদানকালে প্রাসঙ্গিক আলোচনায় তিনি এসব কথা বলেন। মাদরাসার নির্বাহী মুহতামিম অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত খতমে বোখারী অনুষ্ঠানে মাদরাসা অন্যান্য শিক্ষক, স্থানীয় উলামায়ে কেরাম, মাদরাসার কমিটির দায়িত্বশীল ব্যক্তিবর্গ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

মুফতী সৈয়দ ফয়জুল করীম বলেন, ইসলামী তথা কুরআন-সুন্নাহর শিক্ষা মানুষকে প্রকৃত মানুষ হিসেবে গড়ে তুলে। ফলে অপরাধ প্রবণতা তাকে গ্রাস করতে পারে না। প্রচলিত শিক্ষা ব্যবস্থা ছাত্র-ছাত্রীদের আদর্শিকভাবে গড়ে তুলতে ব্যর্থ হয়েছে। নৈতিকতা বির্বজিত শিক্ষার করালগ্রাসে যুব সমাজ নিমজ্জিত হচ্ছে।

তিনি বলেন, যতদিন কুরআন সুন্নাহর ইলম বাকি থাকবে, মসজিদ-মাদরাসা থাকবে, ততদিন পৃথিবী ধ্বংস হবে না। এজন্য ইসলামী শিক্ষার সুতিকাগার মাদরাসাগুলোকে আরো সুন্দর ও সফলভাবে পরিচালনা করতে হবে। এজন্য দীন দরদি সকলকে এগিয়ে আসতে হবে।

আনার মন্তব্য দিন