ধর্ম-বর্ণ-নির্বিশেষে মানুষ হিসেবে সবাই আল্লাহর কাছে সমান।

banglarjay1banglarjay1
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  04:03 AM, 19 July 2020

র্ম-বর্ণ-নির্বিশেষে মানুষ হিসেবে সবাই আল্লাহর কাছে সমান। হাদিস শরিফে বলা হয়েছে সমগ্র সৃষ্টি আল্লাহর পরিবারভুক্ত। কেউ বিপ’দে পড়লে আরেকজন তাকে উ’দ্ধার করবে এটাই ধর্মের শিক্ষা। এমনকি জীবজন্তুর প্রতিও দয়াশীল হতে গুরুত্ব দিয়েছে ইসলাম।

হাদিসে এসেছে হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূল (সা.) বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি কোনো মুমিনের কষ্ট দূর করবে কেয়ামতের দিন আল্লাহতায়ালা তার কষ্ট দূর করবেন। যে ব্যক্তি কোনো অভাবীকে দুনিয়াতে ছাড় দেবে আল্লাহ তাকে দুনিয়া ও আখিরাতে ছাড় দেবেন। যে ব্যক্তি কোনো মুমিনের দোষ গোপন রাখবে, আল্লাহ দুনিয়া ও আখিরাতে তার দোষ গোপন রাখবেন। আর আল্লাহ বান্দার সাহায্যে থাকেন ততক্ষণ, সে তার ভাইয়ের সাহায্যে থাকে যতক্ষণ।’ (মুসলিম, আবু দাউদ ও তিরমিজি।)

মানবসেবার মাধ্যমেই আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভ হয়। হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসূল (সা.) বলেন, ‘কেয়ামতের দিন আল্লাহতায়ালা বলবেন, ‘হে আদম সন্তান, আমি অসুস্থ ছিলাম কিন্তু তুমি আমার সেবা করোনি।’ বান্দা বলবে, ‘হে আমার প্রতিপালক! আপনি তো বিশ্ব পালনকর্তা। কীভাবে আমি আপনার সেবা করব?’ তিনি বলবেন, ‘তুমি কী জানতে না যে, আমার অমুক বান্দা অসুস্থ হয়েছিল, অথচ তাকে তুমি দেখতে যাওনি।

যদি তুমি তার সেবা করতে তবে আমাকেই সেবা করা হতো।’ আল্লাহতায়ালা বলবেন ‘হে আদম সন্তান, আমি তোমার কাছে খাবার চেয়েছিলাম কিন্তু তুমি আমাকে খাবার দাওনি।’ বান্দা বলবে, ‘হে আমার রব! আপনি হলেন বিশ্ব পালনকর্তা, আপনাকে আমি কীভাবে খাওয়াব?’ তিনি বলবেন, ‘আমার অমুক বান্দা তোমার কাছে খাবার চেয়েছিল, কিন্তু তাকে তুমি খাবার দাওনি। যদি তাকে খাবার দিতে তবে আমাকেই খাবার দেয়া হতো।’ (মুসলিম)

আমরা বিভিন্নভাবে মানবসেবা করতে পারি। ডাক্তার তার সেবা দিয়ে, বক্তা তার বক্তৃতার মাধ্যমে, লেখক তার লেখার মাধ্যমে, বিত্তশালীরা তার সম্পদ দিয়ে, বুদ্ধিমান তার বুদ্ধি দিয়ে, জ্ঞানী তার জ্ঞান দিয়ে, স্বাস্থ্যবান তার শক্তি দিয়ে সমাজে

আপনার মতামত লিখুন :