মোহাম্মদ নাসিমের শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি

banglarjay1banglarjay1
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  04:04 AM, 12 June 2020

নিউজ ডেস্ক: আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকেরা।তারা আরও জানিয়েছেন, নাসিমকে বিদেশ নেয়ার বিষয়ে চিকিৎসকদের পক্ষ থেকে কোন মতামত দেয়া হয়নি। বিষয়টি তাদের পরিবারের।

বৃহস্পতিবার রাতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এবং নাসিমের চিকিৎসায় গঠিত বোর্ডের চিকিৎসক অধ্যাপক কনক কান্তি বড়ুয়া বলেন, উনার শারীরিক অবস্থা তো এমনিতেই সং’কটাপ’ন্ন ছিল। আজ আরও অবন’তি হয়েছে। তবে আমরা সার্বিকভাবে প’র্যবে’ক্ষণ করছি।
গত ১ জুন শ্বাসক’ষ্ট নিয়ে বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে ভর্তির পর করোনাভাইরাস পজিটিভ আসে মোহাম্মদ নাসিমের। পরে গত শুক্রবার ভোরে তিনি ব্রে’ন স্ট্রো’ক করেন। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নিউরো সা’র্জন বিভাগের প্রধান প্রফেসর ডা. রাজিউল হকের নেতৃত্বে অ’পারে’শন হয়। পরে দুইদফা আবারও করোনাভাইরাসের পরীক্ষার জন্য তার ন’মু’না নেয়া হয়। সেখানে নেগেটিভ আসে।

এর আগে মোহাম্মদ নাসিমের চিকিৎসায় গঠন করা হয়েছিল ১৩ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড। পরে সাত সদস্যের নতুন মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে।আন্তর্জাতিক ডেস্ক : আমাদের আর্থিক প্যাকেজ তো আপনাদের জিডিপির চেয়ে বেশি। ভারতকে করোনা সম’স্যায় অর্থ সাহায্য দেওয়ার পাকিস্তানের প্রস্তাবকে এভাবেই তা’চ্ছিল্য করে প্রত্যা’খান করল নয়াদিল্লি। পাকিস্তানের প্রায় ৯০ শতাংশ জিডিপি যে ঋণে ডুবে আছে, সেই কথাও মনে করিয়ে দিল ভারত।

এদিন ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব বলেন যে পাকিস্তান এটা মাথায় রাখলে ভালো করবে যে তাদের একটা ঋণের সম’স্যা আছে যেটা প্রায় তাদের জিডিপির ৯০ শতাংশ। ভারতের কথা বলতে গেলে, এটা বলতে হবে যে আমাদের স্টিমুলাস প্যাকেজ পাকিস্তানের জিডিপির সমান।

বৃহস্পতিবার একটি সংবাদপত্রের প্রতিবেদন টুইট করে ইমরান খান বলেন যে ভারতে গরীবরা করোনার জেরে কষ্টে আছে ও তাদের একটি সফল অর্থ জমা দেওয়ার প্রকল্পের বিষয় সাহায্য করতে তারা আগ্রহী।

ইমরান খান বলেন, যে এই রিপোর্ট মোতাবেক ৩৪ শতাংশ ভারতীয় পরিবার এক সপ্তাহের বেশি কা’টাতে পারবেন না কোনও সাহায্য ছাড়া। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বলেন যে তারা সাহায্য করতে প্রস্তুত। দেশের যে নগদ বিনিময় প্রকল্পটি চলছে সেটির বিস্তারিত তথ্য তিনি ভারতের সঙ্গে শেয়ার করতে আগ্রহী বলে দাবি করেন ইমরান।

এখনও পর্যন্ত করোনা মহামা’রীর পর এক কোটি পরিবারকে স্বচ্ছভাবে ১২০ বিলিয়ন টাকা দেওয়া হয়েছে বলেও তিনি দাবি করেন। অন্যদিকে ভারত করোনার মো’কাবিলা করার জন্য প্রায় বিশ হাজার কোটি টাকার স্টিমুলাস প্যাকেজ ঘোষণা করেছে আত্মনির্ভর হওয়ার জন্য। এই মুহূর্তে পাকিস্তানের জিডিপি প্রায় এই অর্থের সমান বলেই অনেক বিশেষজ্ঞ আগে তুলে ধ’রেছিলেন। সেই কথাটাই এবার নতুন করে মনে করিয়ে দিলেন ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের মুখপাত্র। সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস

আপনার মতামত লিখুন :