নিজ ধর্মের লোকদের বাধা, শিক্ষকের লাশ সৎকার করল মুসলিম যুবকরা!

banglarjay1banglarjay1
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  05:02 PM, 13 June 2020

ছিলেন জনপ্রিয় শিক্ষক। প্রায় ৩০ বছরের শিক্ষকতা জীবনে শিক্ষার আলো দিয়ে গড়েছেন বহু ছাত্রকে। বেঁচে থাকতে হয়তো কোনদিনই ভাবেননি, মৃত্যুর পর তিনি হবেন পরিবার ও সমাজের পাহাড় সমান বোঝা।
null

null

null
বাস্তবে এমনটাই ঘটেছে গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলার চুপাইর উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক হরিলাল দেবনাথের (৫৫) বেলায়। উপজেলার মোক্তারপুর ইউনিয়নের মৈশাইর গ্রামের বাসিন্দা ওই শিক্ষক করোনা উপসর্গ নিয়ে গত ১০ জুন বুধবার রাতে স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে রেখে মারা যান।
null

null

null
মৃত্যুর পর তাঁর লাশ সৎকার নিয়ে দেখা দেয় বিপত্তি। পরদিন সকালে সৎকারের কথা থাকলেও পরিবার, নিকট আত্মীয়-স্বজন এমনকি স্থানীয় সনাতন ধর্মাবলম্বী কোন সংগঠনও এগিয়ে আসেনি লাশ সৎকারে।
null

null

null
জানতে পেরে মানবতার প্রশ্নে এগিয়ে আসেন শিক্ষকের গ্রামেরই বাসিন্দা কবির হোসেন পালোয়ান নামে এক যুবকের নেতৃত্বে কয়েকজন মুসলিম যুবক। উদ্যোগ নেন প্রিয় শিক্ষকের লাশ সৎকারের। মুসলমান যুবকদের হিন্দু শিক্ষকের লাশ সৎকারের বিষয়টি স্থানীয়ভাবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শনিবার ভাইরাল হয়।
null

null

null
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই শিক্ষকের পরিবারের এক সদস্য জানান, মৃত্যুর পর হরিলাল দেবনাথের লাশ ধর্মীয় রীতিতে সৎকারের জন্য আহ্বান জানানো হয়েছিল। কিন্তু করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়ায় সন্দেহে এলাকার সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বাধার মুখে পড়ে তার পরিবার।
null

null

null
লাশ সৎকারে সনাতন ধর্মের কোন ব্যক্তি বা সংগঠন এগিয়ে আসেনি। বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত লাশ বাড়ির উঠানে পড়েছিল। পরে বাঁধা উপেক্ষা করে এগিয়ে আসেন কবির হোসেন পালোয়ান। তিনি আরো কিছু যুবক মিলে বিকালে লাশ সৎকার করেন। এটি আমাদের জীবনে অনেক বড় শিক্ষা বলেও মনে করেন তিনি।
null

null

null
এ প্রসঙ্গে কবির পালোয়ানের বলেন, ইসলাম শান্তির ধর্ম। আর প্রধান শিক্ষক হরিলাল দেবনাথ একজন ভালো মানুষ ছিলেন। তাই নিজের দায়িত্ববোধ থেকেই স্থানীয় কিছু মুসলিম ভাইকে নিয়ে মানবিক কাজে এগিয়ে এসেছি।
null

null

null
কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ ছাদেকুর রহমান আকন্দ বলেন, শিক্ষক হরিলাল দেবনাথ করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন এমন খবর পেয়ে করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। আইইডিসিআর থেকে পাওয়া প্রতিবেদনে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে।
null

null

null

আপনার মতামত লিখুন :