রাত ৩টায় ফোন পেয়ে লাশ দাফন করতে ছুটে গেলেন খোরশেদ ও তার টিম

banglarjay1banglarjay1
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  02:14 PM, 14 June 2020

করোনাভাইরাস জয় করে ফের করোনায় মারা যাওয়াদের লাশ দাফন করলেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের আলোচিত কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ ও তার টিম। করোনা জয়ের পর গত শুক্রবার রাতে এ লাশ দাফন করেন খোরশেদ।

শুক্রবার রাতে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ২ নম্বর ওয়ার্ডে ইদ্রিস আলী নামে এক করোনা রোগী মারা যান।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যাওয়া ওই ব্যক্তির লাশ ৫ ঘণ্টা পড়ে থাকলেও মৃতের পরিবারের ডাকে সাড়া দেয়নি কেউnull

null

null

ওইদিন রাত ৩টায় হঠাৎ একটি কল আসে খোরশেদের মোবাইলে। তাকে জানানো হয়, করোনাভাইরাসে মারা যাওয়া ব্যক্তির লাশ দাফনে কাউকে পাওয়া যাচ্ছে না। তারা খোরশেদ ও তার টিমের সহযোগিতা চান।
null

null

null
একে তো গভীর রাত, তার উপর তুমুল বৃষ্টিতে প্রয়োজনীয় সংখ্যক টিমের সদস্য জোগাড় করতে না পেরে সদ্য করোনায় থেকে সেরে ওঠা খোরশেদ নিজেই কয়েকজন সদস্যকেনিয়ে লাশ দাফনে চলে যান।
null

null

null
এ লাশ দাফনের মাধ্যমে করোনায় আক্রান্ত ও উপসর্গে মারা যাওয়া ৮০টি লাশ দাফন করলেন খোরশেদ ও তার সহযোদ্ধারা।

কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ বলেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ, আজ আমাদের ৮০তম দাফন সম্পন্ন হলো।’

লাশ দাফনের ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘নাসিক ২নং ওয়ার্ডের মিজমিজি বসির উদ্দিন মার্কেট এলাকার বাসিন্দা হাজী ইদ্রিস আলী করোনা null

null

nullপজিটিভ হয়ে মারা যায়।

তার পরিবার শুক্রবার রাত ১টায় মৃতদেহ এলাকায় এনে গোসল ও দাফনের জন্য স্থানীয় কাউকে না পেয়ে রাত ৩টায় আমাকে ফোন করে সহযোগিতা কামনা করেন।

তারপর আমরা রাত সাড়ে ৩টার মধ্যে একত্রিত হয়ে ভোর ৪টায় মিজমিজি পৌঁছে মরহুমের গোসল, কাফন, জানাজা শেষে সকাল ৬টা ৩০null

null

null মিনিটে দাফন সম্পন্ন করেছি।’

লাশ দাফনের সময় খোরশেদ ও তার টিমের সদস্যরা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন হাফেজ শিব্বির আহমেদ, সুমন দেওয়ান, রাফি ও নাঈম। লাশ দাফনে সহযোগিতা করেন ২নং ওয়ার্ডের সমাজসেবক মো. ইকবাল হোসেন।

আপনার মতামত লিখুন :